Social Trading – সোশ্যাল ট্রেডিং সম্পর্কে কিছু তথ্য

0
284
Social Trading | সোশ্যাল ট্রেডিং সম্পর্কে বিস্তারিত
Social Trading | সোশ্যাল ট্রেডিং সম্পর্কে বিস্তারিত
- ফ্রি অনলাইন ট্রেনিং -

Social Trading -অনেকেই আমাদের কাছে জন্তে চেয়েছেন, সোশ্যাল ট্রেডিং সম্পর্কে। কিভাবে এই ট্রেডিং সিস্টেম কাজ করে এবং কিভাবে আপনারা এই সুবিধা ব্যবহার করার মাধ্যমে প্রফিট করতে পারেন সে সম্পর্কে আজ আপনাদের সাথে পরিচয় করিয়ে দিব।

আমরা সবাই জানি, রিটেইল ফরেক্স ব্রোকার এর যাত্রা খুব বেশী দিনের নয়। জনপ্রিয় যেসকল ব্রোকার তাদের সেবা প্রদান করে আসছে তাদের বেশীরভাগই ২০০৬-২০১০ এর দিকে যাত্রা শুরু করে। আসলে, এর পূর্বে ব্যাক্তি পর্যায়ে ফরেক্স ট্রেডিং করার কোনও সুবিধা আমাদের ছিল না। এই বিষয়গুলো নিয়ে এর আগেই আপনাদের সাথে আলোচনা করেছি। তারপরও, আপনি চাইলে ফরেক্স ব্রোকারের ইতিহাস আর্টিকেলটি ভালো করে পড়ে নিতে পারেন। সময়ের পরিবর্তন এবং সুবিধার কথা মাথায় রেখে বিভিন্ন ফরেক্স ব্রোকার আজকাল এই Social Trading এর সুবিধা প্রদান করে থাকে।

Social Trading কি?

অনেকেই আছেন, যারা অনেক সময়ও নিয়েও ভালো করে ট্রেড করতে পারেন না কিংবা নিজের জন্য ট্রেডিং কৌশল নির্ধারণ করে নিতে পারেন নি কিন্তু ফরেক্স ট্রেডিং চালিয়ে যেতে চান। তাদের জন্যই মুলত এই সোশ্যাল ট্রেডিং এর সুবিধা। এই সুবিধা ব্যবহার করার মাধ্যমে, ক্লায়েন্টকে নিজ থেকে ট্রেড করতে হবে না। তিনি চাইলে, ব্রোকারে বিদ্যমান অন্যান্য ট্রেডারদের ট্রেড কপি করার সুবিধা পাবেন।

এর মাধ্যমে, একজন ব্যাক্তি যদি নিজে ট্রেড ভালো করে নাও বুঝতে পারেন, তারপরও তিনি চাইলে অন্যের ট্রেড কপি করার মাধ্যমে সেটিকে চালিয়ে নিতে পারেন এবং এখানে ভালো প্রফিটও করার সুবিধা রয়েছে।

Social Trading এর প্রক্রিয়া

এখন প্রশ্ন থাকতে পারে, তাহলে কিভাবে এই সোশ্যাল ট্রেডিং কাজ করে? নিচের চিত্রের মাধ্যমে বিষয়টি সহজে আপনাদের সামনে উপস্থাপন করার চেষ্টা করছি।

Social Trading Diagram

চিত্রটি ভালো করে বোঝার চেষ্টা করুন। এখানে সে ব্যাক্তিটি চেয়ারে বসে আছে তিনি হচ্ছে, আপনি অর্থাৎ যারা সোশ্যাল ট্রেডিং এর সুবিধা ব্যবহার করতে চায়। এবং অন্যরা হচ্ছে, ট্রেডার যারা নিজেরাই ট্রেড করেন এবং আপনি চাইলে এদের ট্রেড কপি করার সুবিধা পাবেন।

আপনাকে শুধুমাত্র যার ট্রেড কপি করতে চান, তার ট্রেডিং একাউন্ট তিনি কিভাবে ট্রেড করেন, কি কি পেয়ারে ট্রেড করেন, রিস্ক কি ধরনের গ্রহন করেন, প্রফিট রেশিও কি ধরনের হয়ে থাকে, কোন কোন কারেন্সি পেয়ারে ট্রেড করেন ইত্যাদি সকল বিষয়সমুহ জানতে এবং সে সম্পর্কে বিস্তারিত ধারনা গ্রহন করতে পারেন। যাচাই-বাছাই করে, যার ট্রেড আপনার পছন্দ হবে, সেই ট্রেড কপি করবেন এবং নিজের ট্রেডিং একাউন্টে ফান্ড রেখে দিবেন। আর কিছুই আপনাকে নিজ থেকে করতে হবে না। সয়ংক্রিয়ভাবে, আপনার একাউন্টে ট্রেড হতে থাকবে এবং আপনি সেটি দেখতেও পাবেন।

Social Trading এর ব্রোকার

আশা করি কিভাবে এই সোশ্যাল ট্রেডিং কাজ করে সেটি সম্পর্কে ধারনা প্রদান করতে পেরেছি। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, সকল ফরেক্স ব্রোকারই কি এই সুবিধা প্রদান করে থাকে? উত্তর হচ্ছে, না। তবে বেশকিছু জনপ্রিয় ব্রোকার এই সুবিধা প্রদান করার মাধ্যমে ট্রেড করতে দেয়। এদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে, ETORO । কানাডার রেগুলেটেড এই ব্রোকার, সোশ্যাল ট্রেডিং করে আসছে অনেক বছর ধরে এবং ফরেক্স ব্রোকার হিসাবে খুব সুনাম এর সাথে সার্ভিসও প্রদান করে আসছে। এছারাও, Instaforex, FBS, SuperForex, HotForex সহ আরও বেশী কিছু ব্রোকার এই Social Trading এর সুবিধা প্রদান করে থাকে। আপনারা চাইলে এই ব্রোকার এর ওয়েবসাইট থেকে এই সংক্রান্ত তথ্যাদি খুঁজে নিতে পারেন।

বাংলাদেশীদের জন্য কোনটি ভালো?

আপনার ইচ্ছা এবং পছন্দ অনুসারে আপনি যেকোনো একটি ব্রোকার এর মাধ্যমে এই ট্রেডিং সুবিধা গ্রহন করতে পারেন। তবে আমাদের পছন্দ হচ্ছে EXNESS Broker । এই ব্রোকার বাংলাদেশীদের কাছে খুবই বেশী জনপ্রিয় এবং বেশ সুনামের সাথে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। যারা এখনও এই ব্রোকার সম্পর্কে জানেন না তারা চাইলে Exness Review আর্টিকেলটি পড়ে নিতে পারেন।

কিভাবে এক্সনেস ব্রোকারে একাউন্ট খুলবেন?

Exness ব্রোকারে একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করা খুবই সহজ। এর জন্য অনুগ্রহ করে এক্সনেস এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট www.exness.com এই লিংক দেখুন এবং সেখানে প্রদর্শিত নির্দেশনাসমুহ অনুসরন করুন। একাউন্ট রেজিস্টার করার পর সেটিকে সঠিকভাবে ভেরিফাই করে নিতে হবে। এবং এর জন্য এক্সনেস ভেরিফিকেশন আর্টিকেলটি পড়ে নিতে পারেন। বিস্তারিত এখানে প্রদান করা হয়েছে।

Social Trading এর সুবিধাসমুহ

  • নিজ থেকে ট্রেডিং করতে হয় না। এবং অনেক ভালো এবং দক্ষ ট্রেডারদের ট্রেড কপি করার সুযোগ পাবেন।
  • যেহেতু নিজ থেকে ট্রেড করতে হয় না, সেক্ষেত্রে ট্রেড করার জন্য সময় প্রদানেরও কোনও প্রয়োজন নেই এবং মার্কেট সম্পর্কিত বিভিন্ন নিউজ এবং আপডেট রাখারও প্রয়োজন নেই।
  • সর্বনিম্ন ব্যালেন্স প্রদান করার মাধ্যমেও ট্রেড শুরু করা যায়। অর্থাৎ, নিজ থেকে বড় বিনিয়োগ এর প্রয়োজন পড়ে না। তারপও আপনি চাইলে আপনার সামর্থ্য অনুযায়ী ফান্ড ডিপোজিট করে নিতে পারেন।
  • নিজ পছন্দ অনুযায়ী ট্রেডার নির্বাচনের সুযোগ রয়েছে এবং নিজের মতন করে লট সাইজ, পরফিট/লস এর রেশিও নির্ধারণ করে নিতে পারবেন।
  • চাইলে একই একাউন্টে একাধিক কপি করার সুবিধা থাকে।
  • ট্রেডার কোনও ট্রেড শুরু করলে কত লট এন্ট্রির জন্য আপনার কত লট এর এন্ট্রি হবে সেটি আপনিই নির্ধারণ করে নিতে পারবেন।
  • যেকোনো সময় চাইলে ব্যালেন্স উত্তোলন করার সুবিধা পাবেন।
  • ব্রোকার যেহেতু সম্পূর্ণ বিষয়টি নিয়ন্ত্রন করে সেক্ষেত্রে আপনাকে কোনও ধরনের স্ক্যাম এর শিকার হতে হবে না। অর্থাৎ, আপনার টাকা আপনি ছাড়া আর অন্য কেউ উত্তোলন করতে পারবেন না।

আশা করি Social Trading সংক্রান্ত যাবতীয় বিষয়গুলো বোঝাতে পেরেছি। যারা এই ধরনের ট্রেড করতে চান তারা অবশ্যই ট্রেড শুরু করার পূর্বে, যার ট্রেড কপি করবেন তার ট্রেড এবং ট্রেডিং সংক্রান্ত বিষয়গুলো জেনে বুঝে তারপর শুরু করার অনুরধ থাকল।


আশা করি আর্টিকেলটি আপনার ভালো লেগেছে। এই আর্টিকেল সম্পর্কিত বিশেষ কোনও প্রশ্ন থাকলে আমাদের জানতে পারেন কিংবা নিচে কমেন্ট করতে পারেন। প্রতিদিনের আপডেট ইমেইল এর মাধ্যমে গ্রহনের জন্য, নিউজলেটার সাবস্ক্রাইব করে নিতে পারেন। এছারাও যুক্ত হতে পারেন আমাদের ফেইসবুক এবং কমিউনিটি পোর্টালে। সেই সাথে রয়েছে আমাদের ভিডিও ট্রেনিং লাইব্রেরী। এছারাও ট্রেড শিখার জন্য জন্য আমাদের রয়েছে অনলাইন ট্রেনিং পোর্টাল।

কমেন্ট/প্রশ্ন করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here