Nonfarm Payrolls (NFP) নিউজের জন্য প্রিপারেশন

2
445
Nonfarm Payrolls (NFP) নিউজের বিশ্লেষণ
সর্বশেষ আপডেট: June 7, 2024
You are here:
  • FX Search
  • Other
  • Nonfarm Payrolls (NFP) নিউজের জন্য প্রিপারেশন
প্রত্যাশিত পড়ার সময়: 7 মিনিট

Nonfarm Payrolls (NFP) – বলা হয়ে থাকে, “ট্রেডিং মার্কেট মুভ করে নিউজের কারনে”। এটি সম্পূর্ণ সত্য যার কিছু ব্যাখ্যা এবং বিশ্লেষণ আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনি জানতে পারবেন। একই সাথে এই নিউজের প্রভাব এবং ট্রেডিং প্ল্যান কি ধরনের হওয়া উচিৎ, সেটিও আজ আপনাদের সামনে উপস্থাপন করবো।

প্রতি মাসের ১ম শুক্রবার এই Nonfarm Payrolls (NFP) সম্পর্কিত নিউজটি বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ০৬ঃ৩০ মিনিট (GMT+6) প্রকাশিত হয়ে থাকে। অর্থাৎ, এখন থেকে এই নিউজের কারনে মার্কেটের সম্ভাব্য প্যাটার্ন, এবং বিশ্লেষণ এই আর্টিকেল থেকে জানতে পারবেন। পরামর্শ থাকবে, এই আর্টিকেলটি আপনার পিসি কিংবা ফোনের ব্রাউজারে বুকমার্ক করে রাখতে পারেন। কেননা প্রতি মাসে, এই আর্টিকেলটি মাধ্যমে নিউজের প্রভাব এবং সম্ভাব্য মার্কেট ট্রেন্ড সম্পর্কে জানতে পারবেন।

বুকমার্ক করার জন্য-আপনার কীবোর্ড থেকে ctrl+d বাটনটি ক্লিক করলেই হয়ে যাবে। চলুন তাহলে আর্টিকেলটি শুরু করা যাক।

NFP সম্পর্কে বিস্তারিত

NFP আসলে কি?

non-farm payroll সংক্ষেপে NFP হচ্ছে একধরনের মাসিক রিপোর্ট যা মুলত পূর্বের মাসে যুক্তরাষ্ট্রে, (USA) কি পরিমাণ নতুন চাকুরীর ব্যবস্থা করা হয়েছে সেটির তথ্য প্রকাশ করে থাকে। তবে এই রিপোর্টের মধ্যে সকল ধরনের কৃষি উৎপাদনকারী পণ্যের প্রতিষ্ঠান, ব্যক্তিগত উদ্যোগে গৃহস্থালি পণ্য তৈরির প্রতিষ্ঠান এবং অলাভজনক সংস্থা কিংবা প্রতিষ্ঠানে কর্মরতের বাদ দিয়ে তথ্য প্রদান করা হয়ে থাকে। সাধারণত, প্রতিমাসের ১ম শুক্রবার এই রিপোর্টটি প্রকাশিত হয়ে থাকে এবং একই সাথে সার্বিক বেকারত্বের পরিমাণ এবং একই সাথে প্রতি ঘন্টা হিসাবে গড় আয়ের পরিমাণের তথ্য প্রকাশ করে থাকে।

NFP গুরুত্বপূর্ণ কেন?

United States Department of Labor প্রতিষ্ঠান এই রিপোর্ট প্রকাশ করে থাকে। একটি দেশের অর্থনীতির দিক-নির্দেশনা পাওয়া যায় মুলত, অর্থনীতির সাথে যুক্ত কিছু ফ্যাক্টর থেকে। এদের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, বেকারত্বের পরিমাণ নির্ণয়, কর্মস্থান থেকে প্রাপ্ত গড় আয়রের পরিমাণ এবং নতুন করে কি পরিমাণ কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করা হয়েছে, সেটি থেকে।

এই তথ্যগুলো মুলত নিবিড়ভাবে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক “Federal Reserve (FED)” পর্যবেক্ষণ করার মাধ্যমে, আর্থিক নীতিমালা প্রণয়ন যেমন ধরুন, সুদহার (Interest Rate) এর পরিমাণ নির্ণয় করে থাকে। উধারন হিসাবে বলা যায়, যদি কর্মসংস্থানের সুযোগ বৃদ্ধি পায়- তাহলে সেটির বিবেচনায় ইন্টারেস্ট রেটের পরিমাণও বৃদ্ধি করা হতে পারে। অন্যদিকে, যদি কর্মসংস্থানের সুযোগ হ্রাস পায়, তাহলে অর্থনীতিতে এটির প্রভাব মোকাবেলা করার জন্য ইন্টারেস্ট রেটের পরিমাণ হ্রাস করা হতে পারে।

যেহেতু যুক্তরাষ্ট্র (USA) পৃথিবীর সর্ব বৃহৎ অর্থনীতির দেশ এবং এই দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক এর প্রণীত যেকোনো ধরনের নীতিমালার পরিবর্তনের সরাসরি প্রভাব দেখতে পাওয়া যায় আন্তর্জাতিক অর্থনীতিতে। যদি সহজ করে বলার চেষ্টা করি, যদি যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক (FED) যদি USD এর ইন্টারেস্ট রেটের পরিমাণ ব্রিদ্ধি করে কিংবা হ্রাস করে, তাহলে সেটির প্রভাব, বাংলাদেশের অর্থনীতিতেও দেখতে পাওয়া যাবে।

এই কারনে, এই নিউজের প্রতি বিনিয়োগকারীদের অধির অপেক্ষা থাকে। কেননা নিউজের মাধ্যমে প্রকাশিত ড্যাটা বিশ্লেষণ করার মাধ্যমে, প্রাইসের মুভমেন্ট থেকে ট্রেডাররা প্রফিট করার চেষ্টা করে। ফলাফল হিসাবে, নিউজ প্রকাশের পর, কারেন্সি এবং স্টক মার্কেটে ব্যাপক আকারের মুভমেন্ট দেখতে পাওয়া যায়।

এই নিউজটি মুলত আগের মাসের তথ্য প্রকাশ করে থাকে। অর্থাৎ, জুনের ৭ তারিখ (১ম শুক্রবার) মুলত পূর্ববর্তী মাস অর্থাৎ, এপ্রিল মাসের তথ্য প্রকাশিত হবে যেটি বাংলাদেশী সময় সন্ধ্যা ০৬ঃ৩০ মিনিট (GMT+6) সময় অনুসারে

কারেন্সি মার্কেটে NFP নিউজের প্রভাব

প্রতিদিন যেই পরিমাণ নিউজ প্রকাশিত হয়, এদের মধ্যে NFP নিউজের প্রভাব অতিমাত্রায় হয়ে থাকে যার কারনে এই নিউজের প্রভাবে, স্পট কারেন্সি মার্কেটের ব্যাপক আকারের প্রাইসের মুভমেন্ট দেখতে পাওয়া যায়।

যেমন ধরুন, যদি যুক্তরাষ্ট্রের সামগ্রিক বেকারত্বের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়, তাহলে অর্থনীতিতে এর খারাপ প্রভাব মোকাবেলা করার জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক (FED), ইন্টারেস্ট রেটের পরিমাণকে হ্রাস কিংবা কমিয়ে নিয়ে আসে। এতে করে ডলারের (USD) সামগ্রিক ভ্যালু কিংবা মান কমে আসে। অন্যদিকে, যদি কর্মসংস্থানের সুযোগ ব্যাপক আকারে বৃদ্ধি পায় তাহলে সেটির পজিটিভ ইমপ্যাক্ট অর্থনীতিতে দেখা যাবে,যার ফলে কেন্দ্রীয় ব্যাংক তখন ইন্টারেস্ট রেটের পরিমাণকে বৃদ্ধি করতে পারে যার ফলে, ডলারের ভ্যালু কিংবা মান বৃদ্ধি পাবে।

যেহেতু এই নিউজটি প্রতিমাসেই প্রকাশিত হয়ে থাকে, এই কারনে নিউজের ড্যাটা সম্পর্কে আগে থেকে ধারনা করা সম্ভব নয় কিংবা সহজ কাজ নয়। আপনার যদি মনে হয়, আগের প্রকশিত NFP এর রিপোর্ট পজিটিভ আসছে বিধায়, এবারও পজিটিভ আসবে, এমনটি মনে করার কোনও কারণই নেই। নিউজের ড্যাটা পজিটিভ কিংবা নেগেটিভ যেকোনোটিই হতে পারে।

যেহেতু নিউজের ড্যাটা কি আসবে সেটি আগে (রিপোর্ট প্রকাশের পূর্বে) থেকে জানার কোনও উপায় নেই, তাই অ্যানালিস্ট কিংবা অর্থনীতিবিদরা সামগ্রিক বিবেচনায়, নিউজ প্রকাশের আগেই, নিউজএর ড্যাটা কি ধরনের হতে পারে, সেটি একটি ধারনা প্রদান করে থাকে।

যখন নিউজের প্রকাশিত ড্যাটা, অর্থনীতিবিদদের প্রকাশিত ড্যাটা থেকে বেশী আসবে, তখন সেটি পজিটিভ হিসাবে গ্রহণযোগ্য হবে। অন্যদিকে, যদি নিউজের ড্যাটা, ধারনাকৃত ড্যাটার থেকে কম আসে, তাহলে সেটি নেগেটিভ হিসাবে গন্য হবে।

যদি NFP এর পজিটিভ ড্যাটা প্রকাশিত হয়, তাহলে সেটির প্রভাবে ডলার শক্তিশালী হয়ে থাকে যার কারনে, XXX/USD প্যাটার্নের সকল কারেন্সি পেয়ারের ভ্যালু নিচের দিকে নেমে আসতে থাকে। অন্যদিকে, যদি NFP এর নেগেটিভ ড্যাটা প্রকাশিত হয়, তাহলে সেটির প্রভাবে ডলার দুর্বল হয়ে থাকে যার কারনে, USD/XXX প্যাটার্নের সকল কারেন্সি পেয়ারের ভ্যালু, উপরের দিকে উঠে আসতে থাকে।

এই সপ্তাহের NFP বিশ্লেষণ

এই সপ্তাহের শুক্রবার এই নিউজের তথ্য প্রকাশিত হবে। প্রথমে চলুন, নিউজের ড্যাটার সার্বিক অবস্থা দেখে নেয়া যাক।

উল্লেখিত এই টেবিলের লাল এবং সবুজ অংশের ড্যাটার দিকে আপনার মনোযোগ আকর্ষণ করছি। লাল অংশের বক্সের মধ্যে বিদ্যমান ড্যাটা হচ্ছে, পূর্বের প্রকাশিত NFP এর রিপোর্ট এবং সবুজ অংশের বক্সের মধ্যে বিদ্যমান ড্যাটা হচ্ছে, এই মাসের ধারনাকৃত NFP ড্যাটা (যেটি অর্থনীতিবিদরা প্রত্যাশা করছেন)। ভালো করে লক্ষ্য করে দেখুন, পূর্বের প্রকাশিত ড্যাটা থেকে এইবার প্রত্যাশিত ড্যাটার পরিমাণ বেশী। অর্থাৎ, অর্থনীতিবিদরা প্রত্যাশা করছেন, এইবারের NFP ড্যাটা বেশী আসবে।

ট্রেডিং এর ভাষায় এটিকে বলা হয় “Positive Forecast”. যখন নিউজের রিপোর্ট প্রকাশিত হবে, তখন যদি প্রকাশিত ড্যাটা, প্রত্যাশিত ড্যাটার থেকে বেশী আসে তাহলে সেটি Positive যার প্রভাবে USD শক্তিশালী হবে। অন্যদিকে, নিউজের রিপোর্ট প্রকাশিত হবে, তখন যদি প্রকাশিত ড্যাটা, প্রত্যাশিত ড্যাটার থেকে কম আসে তাহলে সেটি Negative যার প্রভাবে USD দুর্বল হবে। 

যেহেতু নিউজ প্রকাশের পরই, প্রকাশিত ড্যাটা সম্পর্কে ট্রেডাররা জানতে পারবে, তাই নিউজ প্রকাশের পূর্ব পর্যন্ত ট্রেডাররা, প্রত্যাশিত ড্যাটা (Forecast) অনুসারে, নিউজের ফলাফল সম্পর্কে ধারনা করে পজিশন গ্রহন করে থাকেন।

ডলার ইনডেক্স (DXY) বিশ্লেষণ

সূত্র

নিউজটি যেহেতু যুক্তরাষ্ট্রের, তাই এটির প্রভাব হবে সরাসরি USD এর ভ্যালু কিংবা মানের উপর। যদি পজিটিভ নিউজ রিপোর্ট আসে, তাহলে USD এর ভ্যালু বৃদ্ধি পাবে। অন্যদিকে, যদি নেগেটিভ নিউজ রিপোর্ট আসে, তাহলে USD এর ভ্যালু হ্রাস পাবে। অর্থাৎ,

Positive News -> XXX/USD প্যাটার্নের সকল কারেন্সি পেয়ারের ভ্যালু নিচের দিকে নেমে আসবে। অর্থাৎ, এই কারেন্সি পেয়ারগুলো SELL পজিশন এবং USD/XXX প্যাটার্নের সকল কারেন্সি পেয়ারের ভ্যালু, উপরের দিকে উঠে আসতে থাকে। অর্থাৎ, এই কারেন্সি পেয়ারগুলো BUY পজিশন।

Negative News -> XXX/USD প্যাটার্নের সকল কারেন্সি পেয়ারের ভ্যালু উপরের দিকে উঠে আসবে। অর্থাৎ, এই কারেন্সি পেয়ারগুলো BUY পজিশন এবং USD/XXX প্যাটার্নের সকল কারেন্সি পেয়ারের ভ্যালু, নিচের দিকে নেমে আসতে থাকবে। অর্থাৎ, এই কারেন্সি পেয়ারগুলো SELL পজিশন।

এবার চলুন, নিউজের হিসাবে ডলার ইনডেক্স (DXY) এর চার্ট বিশ্লেষণ করে নেয়া যাক। নিচের আপনি দেখতে পাছেন, ডলার ইনডেক্স এর Daily টাইমফ্রেমের একটি চার্ট।

** Zoom করার জন্য ছবিটিতে ক্লিক করুন **

উল্লেখিত চার্টে,

সবুজ রঙের যেই জোনটি দেখতে পাচ্ছেন, এটি হচ্ছে প্রাইসের বর্তমান রেঞ্জ যেটির প্রাইস রেঞ্জ হচ্ছে 104-105.15 এর মধ্যে। এটি হচ্ছে প্রাইসের গুরুত্বপূর্ণ সাপোর্ট এবং রেসিসটেন্স লেভেল। ভালো করে লক্ষ্য করলে দেখতে পাবেন এই রেঞ্জটিতে পূর্বে প্রাইসের একাধিক রি-অ্যাকশন পয়েন্টের অবস্থান ছিল। নীল রঙের যেই লাইনটি দেখতে পাচ্ছেন, এটি হচ্ছে প্রাইসের পূর্বের ট্রেন্ড লেভেল। এবং কাল রঙের যেই লাইনটি দেখছেন, এটি হচ্ছে প্রাইসের পূর্বের রিভার্সাল ট্রেন্ড লেভেল।

চার্ট দেখে নিশ্চয় বুঝতে পারছেন, ইনডেক্স এর সামগ্রিক অবস্থান হচ্ছে আপট্রেন্ডের মধ্যে কেননা ইনডেক্স ক্রমশ হাইয়ার হাই এবং হাইইয়ার লো প্যাটার্ন তৈরি করে চলেছে যা মুলত আপট্রেন্ডেরই নির্দেশ করে।

মে মাসের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত ইনডেক্সের সামগ্রিক অবস্থান হচ্ছে, চার্ট উল্লেখিত সবুজ রঙের জোনের মধ্যে। প্রাইস একাধিকভাবে এই রেঞ্জটি উপরে এবং নিচের দিকে ব্রেক করার চেষ্টা করলেও, সেটি সম্ভব হয়নি। আসছে NFP নিউজের ফলে, ইনডেক্স এই রেঞ্জ থেকে বের হয়ে আসবে, সেটি প্রায় কনফার্ম হিসাবে আমরা ধরে নিতে পারি।

যদি ইনডেক্সের ড্যাটা পজিটিভ আসে, তাহলে আমরা প্রাইসের রেঞ্জটিকে উপরের দিকে ব্রেকআউট হবার সম্ভাবনা খুবই বেশী যা মুলত ইনডেক্সের জন্য পজিটিভ নির্দেশনা প্রদান করবে। অন্যদিকে, যদি নিউজের ড্যাটা নেগেটিভ আসে, তাহলে ঠিক বিপরীত চিত্রটি আমরা প্রত্যাশা করছি। অর্থাৎ, ইনডেক্সের প্রাইস রেঞ্জের সাপোর্ট লেভেলকে নিচের দিকে ব্রেকআউট প্রদানের মাধ্যমে শক্তিশালী ডাউনট্রেন্ড মুভমেন্ট প্রদানের সম্ভাবনা রয়েছে।

মনে রাখবেন, NFP নিউজের প্রভাবে, ইনডেক্সের ব্যাপক আকারের মুভমেন্ট হবার সম্ভাবনা রয়েছে। যদি ইনডেক্সের ভ্যালু 105 এর উপরে অবস্থান করে, তাহলে শক্তিশালী “আপট্রেন্ড”। যদি 104 এর নিচে ইনডেক্সের ভ্যালু 104 এর নিচে অবস্থান করতে সক্ষম হয় তাহলে, শক্তিশালী “ডাউনট্রেন্ড” দেখতে পাওয়া যাবে।

EUR/USD বিশ্লেষণ

** Zoom করার জন্য ছবিটিতে ক্লিক করুন **

এটি Daily টাইমফ্রেমের চার্ট যেখানে একটি সবুজ রঙের রেঞ্জে চিহ্নিত করা হয়েছে। এই রেঞ্জটিতে একাধিকবার প্রাইসের রি-অ্যাকশন পয়েন্ট আমরা দেখতে পাচ্ছি যা একই সাথে প্রাইসের সাপোর্ট এবং রেসিসটেন্স লেভেল হিসাবেও কাজ করছে। উল্লেখিত এই রেঞ্জটির ব্যাপ্তি হচ্ছে 1.0850-1.1000 এর মধ্যে।

বর্তমানে প্রাইসের অবস্থান হচ্ছে এই রেঞ্জটির মধ্যে। যার ফলে এখনই নতুন করে কোনও Buy/Sell পজিশনে এন্ট্রি গ্রহন করা থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিচ্ছি, কেননা বিগত বেশ কয়েকদিন ধরে প্রাইস একই প্রাইস লেভেলে ঘুর-পাক খাচ্ছে।

এছাড়াও, একটি ট্রেন্ডলাইন সনাক্ত করা হয়েছে। যদি প্রাইস এই ট্রেন্ডলাইনটিকে নিচের দিকে ব্রেকআউট করতে সক্ষম হয়, তাহলেই কেবল আমরা শক্তিশালী ডাউনট্রেন্ড মুভমেন্ট দেখতে পারি। অন্যথায়, প্রাইসকে রেঞ্জের রেসিসটেন্স লেভেলের কাছে পৌছাতে দিন, এরপর চাইলে এন্ট্রি গ্রহন করতে পারেন।

মনে রাখবেন, আপনি যদি Sell এন্ট্রি পজিশন গ্রহন করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করে থাকেন, তাহলে প্রাইসকে অবশ্যই বিদ্যমান ট্রেন্ডলাইনকে নিচের দিকে ব্রেকআউট করতে হবে। অন্যথায়, কোনও ধরনের Sell এন্ট্রি গ্রহন করা যাবেনা।

আসছে NFP নিউজ রিপোর্টের উপর, কারেন্সি পেয়ারটির ভবিষ্যৎ মুভমেন্ট নির্ভর করছে। যদি নিউজের রিপোর্ট পজিটিভ আসে, তাহলে আমরা বড় আকারের বেয়ারিশ মুভমেন্টের প্রত্যাশা করছি। অন্যথায়, নিউজের প্রভাবে নেগেটিভ হলে, কারেন্সি পেয়ারটির পরবর্তী প্রাইস টার্গেট লেভেল হবে 1.1000 এর কাছাকাছি।

GBP/USD বিশ্লেষণ

** Zoom করার জন্য ছবিটিতে ক্লিক করুন **

এটি Daily টাইমফ্রেমের চার্ট যেখানে একটি নীল রঙের রেঞ্জে চিহ্নিত করা হয়েছে। এই রেঞ্জটিতে একাধিকবার প্রাইসের রি-অ্যাকশন পয়েন্ট আমরা দেখতে পাচ্ছি যা একই সাথে প্রাইসের সাপোর্ট এবং রেসিসটেন্স লেভেল হিসাবেও কাজ করছে। উল্লেখিত এই রেঞ্জটির ব্যাপ্তি হচ্ছে 1.2790-1.2860 এর মধ্যে।

বর্তমানে প্রাইসের অবস্থান হচ্ছে এই রেঞ্জটির কাছাকাছি। যেখানে, নতুন করে কোনও ধরনের Buy এন্ট্রি গ্রহন না করার পরামর্শ দিচ্ছি। যাদের ইতিমধ্যেই Buy এন্ট্রি রয়েছে, পরামর্শ থাকবে এন্ট্রিটি ক্লোজ করে প্রফিট বুক করে ফেলার।

1.2790-1.2860 এর মধ্যে চাইলে নতুন করে Sell এন্ট্রি গ্রহন করতে পারেন, তবে একটি বিষয় অবশ্যই মনে রাখবেন, যদি প্রাইস রেঞ্জটির রেসিসটেন্স লেভেল অর্থাৎ, 1.2860 লেভেলের উপরে অবস্থান করতে সক্ষম হয়, তাহলে শক্তিশালী বুল্লিশ মুভমেন্ট দেখতে পাবার প্রত্যাশা করছি।

প্রাইস কি এই রেঞ্জকে ব্রেকআউট করতে পারবেন কিনা, সেটি সম্পূর্ণরুপে নির্ভর কবে, আসছে Nonfarm Payrolls (NFP) নিউজের রিপোর্ট প্রকাশের মাধ্যমে। নিউজ ফলাফল যদি পজিটিভ হয়, তাহলে কারেন্সি পেয়ারটিতে আমরা বড় আকারের বেয়ারিশ মুভমেন্ট দেখতে পেতে পারি। নিউজের ফল নেগেটিভ হলে, ঠিক এর বিপরীত মুভমেন্ট দেখতে পাওয়া যাবে।

মনে রাখবেন, 1.2860 এর নিচ পর্যন্ত প্রাইসের অবস্থানের অর্থই হচ্ছে, বেয়ারিশ মুভমেন্টের সম্ভাবনা। সুতরাং, যদি আপনি নতুন করে এন্ট্রি গ্রহন করতে আগ্রহী হয়ে থাকেন, তাহলে অবশ্যই নিজের ফলাফলের উপর লক্ষ্য রাখবেন।

USD/CAD বিশ্লেষণ

** Zoom করার জন্য ছবিটিতে ক্লিক করুন **

এটি Daily টাইমফ্রেমের চার্ট যেখানে সবুজ রঙের রেঞ্জ (সাপোর্ট) এবং লাল রঙের রেঞ্জ (রেসিসটেন্স) চিহ্নিত করা হয়েছে। এই রেঞ্জ দুইটিতে একাধিকবার প্রাইসের রি-অ্যাকশন পয়েন্ট আমরা দেখতে পাচ্ছি যা একই সাথে প্রাইসের সাপোর্ট এবং রেসিসটেন্স লেভেল হিসাবেও কাজ করছে। উল্লেখিত এই রেঞ্জটির ব্যাপ্তি হচ্ছে 1.3580-1.3880 এর মধ্যে অর্থাৎ, প্রায় ৩০০ পিপ্সের রেঞ্জ।

বর্তমানে প্রাইসের অবস্থান হচ্ছে এই রেঞ্জটির সাপোর্ট লেভেলের কাছাকাছি। ইতিমধ্যেই প্রাইস একাধিকভার এই সাপোর্ট লেভেলের কাছে আসলেও, সেটিকে ব্রেক করতে সক্ষম হয়নি অর্থাৎ, লেভেলটি শক্তিশালী। যদি প্রাইস এই সাপোর্ট লেভেলটিকে নিচের দিকে ব্রেকআউট করতে না পারে, তাহলে সম্ভাবনা রয়েছে শক্তিশালী বুল্লিশ মুভমেন্ট প্রদানের।

সম্পূর্ণ বিষয়টি নির্ভর করবে, আসছে NFP নিউজের প্রকাশিত রিপোর্টের ভিত্তিতে। যদি নিউজের ফল পজিটিভ আসে, তাহলে শক্তিশালী বুল্লিশ মুভমেন্ট হবার সম্ভাবনা রয়েছে যেখানে প্রাইসের সম্ভাব্য টার্গেট লেভেল হচ্ছে 1.3830-3880 এর কাছাকাছি। অন্যদিকে, নেগেটিভ নিউজের কারনে, প্রাইসের মুভমেন্ট দেখা যেতে পারে 1.3450 এর আশেপাশে।

GOLD (XAU/USD) বিশ্লেষণ

** Zoom করার জন্য ছবিটিতে ক্লিক করুন **

বর্তমান বৈশ্বিক পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে রয়েছে, ফলাফল হিসাবে আমরা গোল্ডের শক্তিশালী আপ্ট্রেন্ড মুভমেন্ট দেখতে পাচ্ছি। এই মুভমেন্টের পিছনে দুইটি কারণ রয়েছে – রাজনৈতিক অস্থিরতা এবং বিশ্ব অর্থনীতির বাজে অবস্থা। গোল্ডের ট্রেডিং এর কিছু নির্দেশিকা রয়েছে এই https://fxbd.co/SHy লিংক এর আর্টিকেলটিতে। চাইলে পড়ে নিতে পারেন।

H4 চার্টে আমরা বেশ কয়েকটি রেঞ্জ চিহ্নিত করেছি। প্রথমে এগুলোর সাথে আপনাকে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছি।

নীল রঙ (বর্তমান ট্রেডিং রেঞ্জ) -> 2325-2370
সবুজ রঙ (লংটার্ম ট্রেডিং রেঞ্জ) -> 2280-2400

চার্টটির দিকে ভালো করে লক্ষ্য করলে দেখতে পাবেন, প্রতিটি সাপোর্ট -রেসিসটেন্স লেভেলে প্রাইসের একাধিক রি-অ্যাকশন রয়েছে। অর্থাৎ, এই লেভেলগুলো গুরুত্বপূর্ণ। বর্তমান প্রাইসের অবস্থান হচ্ছে, চার্টে বিদ্যমান নীল রঙের জোনের উপরে। বিদ্যমান প্রাইসের মুভমেন্ট অনুসারে, প্রাইসের সম্ভাব্য গতিপথ হচ্ছে 2385-2400 এর কাছাকাছি।

যদি প্রাইস, 2355 এর নিচে অবস্থান করতে সক্ষম হয়, তাহলে ধরে নিতে পারি প্রাইসের মুভমেন্ট হতে পারে 2330 এবং পরবর্তীতে 2280 এর কাছাকাছি। এখন প্রাইস উপরের দিকে মুভ করবে, নাকি নিচে নেমে আসবে সেটি সম্পূর্ণরুপে নির্ভর করবে আসছে NFP নিউজের ফলাফলের উপর।

যাদের ট্রেডিং ব্যালেন্সের পরিমাণ কম, অনুগ্রহ করে গোল্ডে এন্ট্রি গ্রহন না করার পরামর্শ দিচ্ছি। গোল্ডের সম্ভাব্য মুভমেন্ট ঠিক কোনদিকে হতে পারে, সেটি আগে থেকে থেকে প্রত্যাশা করাটা কিছুটা কষ্টকর। কেননা, গোল্ডের প্রাইস মুভমেন্টের বড় আকারের প্রভাবক হচ্ছে USD সংক্রান্ত নিউজের সাথে বৈশ্বিক বিভিন্ন ধরনের গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা।

আশা করি আর্টিকেলটি আপনার ভালো লেগেছে। এই আর্টিকেল সম্পর্কিত বিশেষ কোনও প্রশ্ন থাকলে আমাদের জানাতে পারেন কিংবা নিচে কমেন্ট করতে পারেন। প্রতিদিনের আপডেট ইমেইল এর মাধ্যমে গ্রহনের জন্য, নিউজলেটার সাবস্ক্রাইব করে নিতে পারেন। গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো টিউটোরিয়াল দেখার জন্য অনুগ্রহ করে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন। এছাড়াও, যুক্ত হতে পারেন আমাদের ফেইসবুক এবং টেলিগ্রাম চ্যানেলে। এছারাও ট্রেড শিখার জন্য জন্য আমাদের রয়েছে বিশেষায়িত অনলাইন ট্রেনিং পোর্টাল।

কপি করুন আমাদের এক্সপার্টদের ট্রেড। জানুন বিস্তারিত

আরটিকেল সম্পর্কে মতামত
খারাপ 0 20 of 20 found this article helpful.
Views: 456
পূর্বের আর্টিকেলRecession | অর্থনৈতিক মন্দা কি? প্রভাব এবং ফলাফল
Fx Bangladesh
নতুনদের ফরেক্স ট্রেডিং সংক্রান্ত সকল ধরণের সহায়তা করার জন্য ,ফরেক্স বাংলাদেশ কাজ করে যাচ্ছে। ইতিমধ্যেই আমরা প্রায় ২২০০+ অধিক ট্রেডারকে, ফরেক্স ট্রেডিং সংক্রান্ত সঠিক দিক নির্দেশনা প্রদান করে আসছি এবং আমাদের এই অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করি। ফরেক্স ট্রেডিং সংক্রান্ত আপনার যেকোনো সহায়তার জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। ধন্যবাদ ।

2 কমেন্ট

কমেন্ট/প্রশ্ন করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here