Support And Resistance – সাপোর্ট এবং রেসিসটেন্স কি?

2
4127
Support And Resistance
- যুক্ত হউন টেলিগ্রাম চ্যানেলে -

Support And Resistance হচ্ছে, ফরেক্স ট্রেডিং এর বহুল পরিচিত এবং বহুল ব্যবহৃত একটি কনসেপ্ট। প্রত্যেক ট্রেডার তাদের নিজ নিজ আইডিয়া ব্যবহার করে সাপোর্ট এবং রেসিসটেন্স পরিমাপ করে থাকেন।
চলুন আমরা প্রথমে এর বেসিক আগে ভালো করে জেনে নেই-

উপরের ডায়াগ্রামটি ভালো করে লক্ষ্য করুন। আপনি এখানে দেখতে পাচ্ছেন, একটি জিগজ্যাগ প্যাটার্ন (zigzag pattern) যা ক্রমশ উপরের দিকে উঠে যাচ্ছে (bull market)।

যখন ফরেক্স মার্কেট উপরের দিকে মুভ করে এবং আবার নিচের দিকে নেমে আসে, নিচের দিকে নামার আগে এটি যখন সবচেয়ে হাই পয়েন্টে (highest point) গিয়েছিল সেই হাই পয়েন্ট হচ্ছে এখন রেসিস্টেন্স (resistance)। ট্রেডিং এর ভাষায় রেসিসটেন্স লেভেলকে বলা হয় surplus of sellers.

মার্কেট যখন ধারাবাহিকভাবে উপরের দিকে যেতে থাকে, তখন সবচেয়ে নিচের যে পয়েন্ট (lowest point) থেকে মার্কেট আবার উপরের দিকে উঠে যায় সেই পয়েন্টকে বলা হয় সাপোর্ট (support)। ট্রেডিং এর ভাষায় সাপোর্ট লেভেলকে বলা হয় surplus of buyers.

অর্থাৎ, এই কারনে প্রাইস মুভমেন্ট এর সাথে সাথে সাপোর্ট-রেসিস্টেন্স লেভেলগুলো ক্রমগাত তৈরি হতে থাকে।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে কিভাবে এই লেভেলগুলোতে ট্রেড করতে হয়? সহজ মাধ্যম হচ্ছে মুলত দুইটি।

  1. বাউন্স ট্রেডিং
  2. ব্রেকআউট ট্রেডিং

বাউন্স ট্রেডিং

  • তখন BUY এন্ট্রি গ্রহন করবেন, যখন প্রাইস সাপোর্ট লেভেল এর কাছাকাছি থাকবে। যার অর্থ হচ্ছে, প্রাইস এই সাপোর্ট লেভেল ব্রেক করতে না পেরে পুনরায় বিপরীত দিকে অর্থাৎ, রেসিস্টেন্স লেভেল এর দিকে ফিরে যাবে।
  • তখন SELL এন্ট্রি গ্রহন করবেন, যখন প্রাইস রেসিস্টেন্স লেভেল এর কাছাকাছি থাকবে। যার অর্থ হচ্ছে, প্রাইস এই রেসিস্টেন্স লেভেল ব্রেক করতে না পেরে পুনরায় বিপরীত দিকে অর্থাৎ, সাপোর্ট লেভেল এর দিকে ফিরে যাবে।

ব্রেকআউট ট্রেডিং

  • তখন BUY এন্ট্রি গ্রহন করবেন, যখন প্রাইস বিদ্যমান রেসিস্টেন্স লেভেলকে ব্রেক করতে সক্ষম হবে এবং আরও উপরের দিকে উঠে যেতে থাকবে।
  • তখন SELL এন্ট্রি গ্রহন করবেন, যখন প্রাইস বিদ্যমান সাপোর্ট লেভেলকে ব্রেক করতে সক্ষম হবে এবং আরও নিচের দিকে নেমে আসতে থাকবে।

এখন আপনার মনে হতে পারে, কোন মাধ্যমটি ব্যবহার করে ট্রেড করলে সুবিধা হবে। চিন্তার কিছুই নেই। এই বিষয় দুইটি নিয়ে আমরা আরও বিস্তারিত আলোচনা করবো। আজকের আর্টিকেল এর জন্য এতটুকুই শিখে রাখুন।

এই সুত্র অনুসারেই ফরেক্স চার্টে সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেল গঠিত হতে থাকে। উপরের চিত্র অনুসারে আমরা আপট্রেন্ড এর মাধ্যমে সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেল এর ব্যাখ্যা প্রদান করেছি। ডাউনট্রেন্ড কিংবা সেলট্রেন্ড এর ক্ষেত্রেও বিষয়টি একই।

সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেল চিহ্নিত করন

একটি কথা মনে রাখবেন, সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেল কিন্তু একই রকমের নাম্বার কিংবা কোনও সংখ্যা নয়। যেমন, অনেকেই বলে থাকেন, EUR/USD এর মেজর সাপোর্ট হচ্ছে 1.2300 অর্থাৎ, সাপোর্ট লেভেলকে একটি নাম্বার এর মাধ্যমে প্রকাশ করা হল। কিন্তু বিষয়টি সঠিক নয়। কেন সঠিক নয়, সেটি কিছুটা পরের বুঝতে পারবেন।

সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেল সংক্রান্ত আমাদের একটি বিশেষ ট্রেনিং কোর্স রয়েছে। চাইলে এই কোর্সটি থেকে আরও বিস্তারিত তথ্য জেনে এবং শিখে নিতে পারবেন। এছাড়াও, এই সম্পর্কিত একটি ভিডিও টিউটোরিয়াল পাবেন, ক্লাউড লাইব্রেরী থেকে।

মাঝে মাঝে আপনি খেয়াল করবেন প্রাইস সফলভাবে সাপোর্ট এবং রেসিসটেন্স লেভেল ভেঙে (broken) ফেলেছে, কিন্তু আবার কিছু সময়ের পরই আপনি বুঝতে পারবেন, প্রাইস আসলে সেই লেভেলকে ব্রেক করতে সক্ষম হয়নি বরং স্পর্শ (test) করেছে মাত্র।

Candlestick charts এর সাথে, অনেক সময় Support এবং Resistance এর এই টেস্ট, candlestick shadows এর মাধ্যমে প্রদর্শিত হয়ে থাকে। অনেকেই আবার এই shadow কে “পিন” নামে আখ্যায়িত করে থাকেন। অনুগ্রহ করে নিচের চিত্রটি ভালো করে লক্ষ্য করুন।

লক্ষ্য করুন, কিভাবে ক্যান্ডেলের শেডো (shadow) 1.4700 এর সাপোর্ট লেভেলকে স্পর্শ করে। এই মুহূর্তে এটাকে দেখেলে মনে হবে মার্কেট সাপোর্ট লেভেলকে ভেঙে ফেলেছে কিন্তু কিছুক্ষণ পর আমরা দেখতে পাচ্ছি, মার্কেট শুধুমাত্র এই সাপোর্ট লেভেলটাকে স্পর্শ করেছে।

এখন, আপনি যদি সাপোর্ট লেভেল ব্রেক হয়েছে সেই হিসাব করেন তাহলে ভুল এন্ট্রি নিয়ে বসবেন এবং ফলাফল হবে লস।

কিভাবে বুঝবেন মার্কেট সত্যি লেভেল ভেঙেছে?

আসলে এই প্রশ্নের কোনও নির্দিষ্ট উত্তর নেই। অনেকেই তর্কবিতর্ক করে বলে থাকেন সাপোর্ট এবং রেসিসটেন্স লেভেল তখনি ভাঙবে যদি মার্কেট প্রাইস সেই লেভেল ক্রস করে শেষ হয়। কিন্তু আমাদের মতে, সব ক্ষেত্রে এই কথাটি সত্য নয়। আপনাকে একটি উদাহরণ দিয়ে বুঝানোর চেষ্টা করছি।

উপরে যেই চিত্রটি আপনাদের সামনে উপস্থাপন করেছিলাম সেটির উপর ভিত্তি করে একটি উধাহরন দেখনোর চেষ্টা করছি। ভালো করে লক্ষ্য করুন। ঠিক কি ঘটেছিলো যখন মার্কেট প্রাইস 1.4700 সাপোর্ট লেভেলের নিচে গিয়ে শেষ হয়?

উপরের উদাহরনে, প্রাইস 1.4700 সাপোর্ট লেভেলের নিচে গিয়েই শেষ হয়েছিল কিন্তু সেই লেভেল এর নিচে অবস্থান করতে না পেরে আবার লেভেলের উপরে উঠে আসে।

এখন, আপনি যদি বিশ্বাস করে থাকেন এটা একটি সত্যি ব্রেকআউট ছিল এবং ব্রেকআউট ট্রেডিং এর কৌশল অনুসারে, এখানে একটি সেল (sell) এন্ট্রি নিয়ে থাকেন তাহলে আপনি নিশ্চিতভাবে ভালো ধরনের লসের মুখে পরেছেন। ফরেক্স, এখন আপনার জন্য হয়ে যাবে সর্বনাশের কারন।

আপনি খুব ভালো ভাবেই দেখতে পাচ্ছেন সাপোর্ট লেভেলকে মার্কেট প্রাইস ভাঙতে পারেনি; এই লেভেলটি এখনও সম্পূর্ণ অক্ষত অবস্থায় আছে এবং এটি আগের থেকে আরও বেশী শক্তিশালী হয়েছে।

এই ধরনের ব্রেকআউটগুলোকে আমরা প্রধানত “False Breakout” বলে থাকি, এবং এর থেকে বাচার কিছু উপায়ও রয়েছে। সবারপূর্বে, সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেলগুলো নাম্বার এর পরিবর্তে জোন (Zone) হিসাবে চিন্তা করতে হবে। অর্থাৎ, সাপোর্ট কিংবা রেসিস্টেন্স লেভেলগুলো রেঞ্জ এর হিসাবে চিন্তা করতে হবে কোনও নির্দিষ্ট প্রাইস লেভেল নয়।

এই জোন কিংবা রেঞ্জ নির্ধারণ করার একটি সহজ মাধ্যম রয়েছে। এটির জন্য সর্বপ্রথম আপনাকে টার্মিনাল এর প্রাইস চার্টকে, ক্যান্ডেলস্টিক চার্ট এর পরিবর্তে, লাইন চার্ট এর মাধ্যমে সেট করে নিতে হবে।

এখন আপনার প্রশ্ন হতে পার, সবাই ক্যান্ডেলস্টিক চার্ট এর মাধ্যমে ট্রেড করে! আর আপনারা বলছেন লাইন চার্ট????

এর প্রধান কারন হচ্ছে, লাইন চার্ট শুধুমাত্র ক্লোজিং প্রাইস নিয়ে কাজ করে যেখানে ক্যান্ডেলস্টিক চার্ট প্রাইস এর সবচেয়ে হাই এবং লো পয়েন্ট নিয়ে কাজ করে। যার কারনে, এই হাই কিংবা লো প্রাইস লেভেলগুলো মাঝে মাঝে আপনার নির্দিষ্ট লেভেল চিহ্নিত করার জন্য অসুবিধার তৈরি করতে পারে।

এই অসুবিধা হচ্ছে, আপনি অংকন করছেন এক রকম, কিন্তু আসলে চার্টে তৈরি হচ্ছে এক রকম। ট্রেডিং এর ভাষায় এটিকে বলা হয় “Reflex” যার কোনও নির্দিষ্ট অবস্থান নেই। 

চার্টে ট্রেড করার জন্য আপনি যখন সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেল আঁকবেন তখনই সেটিকে অবশ্যই শতভাগ সঠিক হতে হবে। কেননা সেটি না হলে আপনার ট্রেড, “ভুল ডায়াগনস্টিক রিপোর্ট এর কারনে ভুল চিকিৎসা” অবস্থার শিকার হবে।

এখন নিচের লাইন চার্ট এর দিকে ভাল করে লক্ষ্য করুন, আপনি যদি প্রাইসের বিদ্যমান হাই এবং লো পয়েন্টগুলোতে সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেল প্লট কিংবা অংকন করতে চান তাহলে প্রথমে আপনার জোনগুলোকে চিহ্নিত করে নিতে হবে।

সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেল এর কিছু টিপসঃ

  • যখন প্রাইস, চার্টে বিদ্যমান রেসিস্টেন্স লেভেলকে ব্রেক করে ফেলবে তখন সেটি সাপোর্ট লেভেল হিসাবে বিবেচিত হবে। অর্থাৎ, ব্রেক করার পূর্বে যেটি রেসিস্টেন্স লেভেল ছিল, ব্রেক করার পর এখন সেটি সাপোর্ট লেভেলে পরিণত হবে।
  • যদি এমন হয়, প্রাইস অনেকবার সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেল স্পর্শ করছে কিন্তু সেটিকে ব্রেক করতে পারছে না তাহলে ধরে নিতে হবে, এই লেভেলটি অনেক বেশী শক্তিশালী।
  • যদি প্রাইস সফলভাবে সাপোর্ট কিংবা রেসিস্টেন্স লেভেলকে ব্রেক করতে সক্ষম হয়, তাহলে প্রাইস এর পরবর্তী মুভমেন্ট নির্ভর করবে ঠিক কতটা শক্তি নিয়ে এই লেভেলকে ব্রেক করেছে সেটার উপর।

প্র্যাকটিস এর মাধ্যমে, আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন কোনও সাপোর্ট কিংবা রেসিস্টেন্স লেভেল শক্তি ঠিক রকমের এবং এর মাধ্যমেই বুঝতে পারবেন, চার্টে বিদ্যমান সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেলগুলোর শক্তির পরিমাণ সম্পর্কে। এর জন্য খুববেশী পরিমাণ চিন্তা কিংবা কষ্ট করারও প্রয়োজন নেই তবে মনে রাখতে হবে, প্র্যাকটিস ছাড়া আপনি বিষয়টিতে অভ্যস্ত হতে পারবেন না।

পরবর্তী লেকচারে আমরা আলোচনা করবো কিভাবে কোনাকোনি সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স লেভেল এর মাধ্যমে ট্রেড করা যায়। এগুলো আবার Forex Trend Lines হিসাবেও পরিচিত।


আশা করি আর্টিকেলটি আপনার ভালো লেগেছে। এই আর্টিকেল সম্পর্কিত বিশেষ কোনও প্রশ্ন থাকলে আমাদের জানতে পারেন কিংবা নিচে কমেন্ট করতে পারেন। প্রতিদিনের আপডেট ইমেইল এর মাধ্যমে গ্রহনের জন্য, নিউজলেটার সাবস্ক্রাইব করে নিতে পারেন। এছারাও যুক্ত হতে পারেন আমাদের ফেইসবুক এবং টেলিগ্রাম চ্যানেলে। এছারাও ট্রেড শিখার জন্য জন্য আমাদের রয়েছে বিশেষায়িত অনলাইন ট্রেনিং পোর্টাল।

যুক্ত হউন আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলে, জানুন মার্কেট আপডেট

2 কমেন্ট

  1. […] একাধিকবার নেমে যেতে ব্যর্থ হয়েছে। সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স সকল মার্কেট […]

কমেন্ট/প্রশ্ন করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here