Keltner Channels কি? কিভাবে ব্যবহার করবেন?

2
213
Keltner Channel
- ফ্রি কপি ট্রেডিং -

Keltner Channels হছে মুলত একটি মার্কেট মুভমেন্ট কিংবা Volatility Indicator যা Chester Keltner নামক একজন ট্রেডার তার বই How to Make Money in Commodities এর মাধ্যমে প্রথম উপস্থাপন করেন ১৯৬০ সালের দিকে। এরপর ১৯৮০ সালের দিকে এই বই এর একটি সংস্করণ বের করেন Linda Raschke নামের এক ট্রেডার।

তার মতে Keltner Channel যা এখন সবাই ব্যবহার করেন, এই ইন্ডিকেটরটি অনেকটা Bollinger Bands এর মতন কাজ করে কেননা এই ইন্ডিকেটরটিরও তিনটি আলাদা আলাদা লাইন রয়েছে। যেখানে এই লাইনগুলো মধ্যবর্তী যেই লাইনটি রয়েছে সেটি মুলত Exponential Moving Average যাকে সংক্ষেপে EMA নামে পরিচিত।

অন্য দুইটি লাইন মুলত Average True Range সংক্ষেপে ATR ইন্ডিকেটর এর মাধ্যমে গঠিত যা standard deviations (SD) এর মাধ্যমে কাজ করে থাকে।

যেহেতু ATR ইন্ডিকেটর এর সমন্বয়ে গঠিত এবং আমরা সবাই জানি ATR Indicator মার্কেট ভোলাটিলিটি এর পরিমাপ করে থাকে তাই Keltner Channel ও ঠিক একই রকম করে চ্যানেল এর বিদ্যমান লাইনগুলো সংকুচিত এবং সম্প্রসারিত হয়ে থাকে। তবে পার্থক্য হচ্ছে, এই সংকচন কিংবা প্রসারণ বলিঙ্গার ব্যান্ড এর মতন হয় না।

Keltner Channel মুলত মার্কেট প্রাইস এর কোথায় এন্ট্রি গ্রহন এবং ক্লোজ করতে হবে সেটি সম্পর্কে ধরনা প্রদান করে থাকে। এছাড়াও, এটি মুভিং এভারেজ বের করার মাধ্যমে মার্কেট যখন কোনও নির্দিষ্ট রেঞ্জ এর মধ্যে থাকে তখন পসিবল overbought এবং oversold লেভেল গুলোকে চিনহিত করে থাকে এবং সেই সাথে নতুন ট্রেন্ড কখন তৈরি হতে পারে সে সম্পর্কে ধারনাও প্রদান করে থাকে।

আমরা চ্যানেল সম্পর্কে পূর্বেও জেনেছিলাম। ঊর্ধ্বমুখী কিংবা নিম্নমুখী চ্যানেল এর মতন এই ইন্ডিকেটরটির লেভেলগুলো কোনও সমান্তরাল লাইনের মধ্যে আবদ্ধ থাকে না। এবং মার্কেট এর মুভমেন্ট এর সাথে সাথে পরিবর্তিত হতে থাকে। অনুগ্রহ করে নিচের চিত্রটি লক্ষ্য করুন –

Keltner Channel Example

আপনার জদি Bollinger Band ইন্ডিকেটর সম্পর্কে ধারনা থেকে থাকে তাহলে নিশ্চয় বুঝতেই পারছেন এটি অনেকটাই একইভাবে কাজ করে। কমপক্ষে চিত্র দেখে তাই বুঝতে পারছেন আশা করি।দেখতে Keltner Channel এবং Bollinger Bands একই রকমের হলেও দুইটি ইন্ডিকেটর এর কাজ করার ধরন এবং ক্যালকুলেশন ভিন্ন ধরনের। আসলে এই ধরনের গাণিতিক বিশ্লেষণে আমরা যেতে চাই না এবং সেটি টাইপ করে আপনাকে বোঝানোও যাবে না। আমাদের মুল কাজ হচ্ছে কিভাবে এই ইন্ডিকেটরটি কাজ করে এবং কিভাবে এর মাধ্যমে রিয়েল ট্রেড করা যায় সে সম্পর্কে জানা।

Keltner Channel ব্যবহার করে রিয়েল ট্রেডিং

আমরা সবাই জানি, চ্যানেলে মুলত দুইটি সমান্তরাল লাইন থাকে যার উপরের লাইনটি মার্কেট প্রাইস এর রেসিস্টেন্স এবং নিচের লাইনটি সাপোর্ট লেভেল হিসাবে কাজ করে থাকে।

Keltner চ্যানেল মুলত কোন লেভেলে যেয়ে কারেন্সি পেয়ারটি অবস্থান করতে পারে সেই লেভেলটিকে চিনহিত করে থাকে।

সাপোর্ট এবং রেসিস্টেন্স হিসাবে ব্যবহার

এই ইন্ডিকেটরটিতে যেই সেটিং করা থাকে তার মধ্যে রয়েছে

  • উপরের এবং নিচের লাইন হচ্ছে = 2x ATR (10) এর মাধ্যমে গঠিত
  • মধ্যবর্তী লাইন হচ্ছে = EMA (20) মাধ্যমে গঠিত থাকে।

মধ্যবর্তী এই লাইনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ কেননা বিদ্যমান কোনও ট্রেন্ডে এই লাইনটি বাউন্স কিংবা Pullback লেভেল হিসাবে কাজ করে থাকে। 

প্রাইস যখন আপট্রেন্ডে থাকে, তখন প্রাইস মধ্যবর্তী লাইন এবং উপরের লাইন এর মধ্যে অবস্থান করতে থাকে যেখানে মধ্যবর্তী লাইন সাপোর্ট এবং উপরের লাইন রেসিস্টেন্স লেভেল হিসাবে কাজ করে। নিচের ছবিটি লক্ষ্য করুন –

Keltner Channel in Uptrend

প্রাইস যখন ডাউট্রেন্ডে থাকে, তখন প্রাইস মধ্যবর্তী লাইন এবং নিচের লাইন এর মধ্যে অবস্থান করতে থাকে যেখানে মধ্যবর্তী লাইন রেসিস্টেন্স এবং নিচের লাইন সাপোর্ট লেভেল হিসাবে কাজ করে। নিচের ছবিটি লক্ষ্য করুন –

Keltner Channel in Downtrend

প্রাইস যখন রেঞ্জে থাকে, তখন প্রাইস ক্রমাগত চ্যানেল এর টপ অর্থাৎ উপরের লাইন এবং বোটম অর্থাৎ নিচের লাইনের মধ্যে ক্রমাগত বাউন্স করতে থাকে।

ব্রেকআউট ট্রেডিং এর ক্ষেত্রে ব্যবহার

যদি কোনও ব্রেকআউট সংগঠিত হয়ে থাকে তাহলে Keltner Channel শক্তিশালী ট্রেন্ড এর নির্দেশনা প্রদান করে থাকে। যদি ক্যান্ডেল কোনওভাবে চ্যানেল এর উপরের লেভেল অর্থাৎ টপ লেভেলকে ব্রেক করতে সক্ষম হয় তাহলে ধরে নিতে হবে প্রাইস আরও উপরের দিকে যাবে। যেমনটি হয়েছে নিচের চিত্রে –

Keltner Channel Breakout in Uptrend

অন্যদিকে, যদি ক্যান্ডেল কোনওভাবে চ্যানেল এর নিচের লেভেল অর্থাৎ বোটম লেভেলকে ব্রেক করতে সক্ষম হয় তাহলে ধরে নিতে হবে প্রাইস আরও নিচের দিকে নেমে আসবে। যেমনটি হয়েছে নিচের চিত্রে –

Keltner Channel Breakout in Downtrend

মনে রাখবেন, আপনি যদি ভালো করে এই চ্যানেল এর ব্রেকআউটকে খুজে নিতে পারেন তাহলে ট্রেন্ড শুরু হবার আগেই এন্ট্রি গ্রহন করে বেশকিছু পিপ্স এর প্রফিট করতে পারবেন। আশা করছি ইন্ডিকেটরটি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্যাদি আপনাদের জন্য উপস্থাপন করতে পেরেছি। যদি কোনও বিশেষ প্রশ্ন থাকে তাহলে অনুগ্রহ করে আমাদের জানাতে পারেন কিংবা নিচের কমেন্ট সেকশনে লিখতে পারেন। আমরা চেষ্টা করবো আপনাকে সর্বাত্মক সহায়তা করার।


আশা করি আর্টিকেলটি আপনার ভালো লেগেছে। এই আর্টিকেল সম্পর্কিত বিশেষ কোনও প্রশ্ন থাকলে আমাদের জানতে পারেন কিংবা নিচে কমেন্ট করতে পারেন। প্রতিদিনের আপডেট ইমেইল এর মাধ্যমে গ্রহনের জন্য, নিউজলেটার সাবস্ক্রাইব করে নিতে পারেন। এছারাও যুক্ত হতে পারেন আমাদের ফেইসবুক এবং কমিউনিটি পোর্টালে। সেই সাথে রয়েছে আমাদের ভিডিও ট্রেনিং লাইব্রেরী। এছারাও ট্রেড শিখার জন্য জন্য আমাদের রয়েছে অনলাইন ট্রেনিং পোর্টাল।

2 COMMENTS

কমেন্ট/প্রশ্ন করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here